বুধবার, সেপ্টেম্বর ১৮

ভিনরাজ্যে গিয়ে মৃত্যু মালদার যুবকের, খুনের অভিযোগ দায়ের

দ্য ওয়াল ব্যুরো, মালদা : ফের ভিন রাজ্যে কাজে গিয়ে মৃত্যু হল এক যুবকের। তাঁকে খুন করা হয়েছে বলেই পরিবারের অভিযোগ। গুজরাটের আমেদাবাদ থেকে আজ কালিয়াচকের ভবানীপুর গ্রামে তাঁর দেহ ফিরতেই শোকের ছায়া নামে গোটা তল্লাটে। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে মৃতদেহ গ্রামের রাস্তায় রেখে দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ দেখায় মৃতের পরিজনেরা। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মৃত যুবকের নাম প্রসেনজিৎ ঘোষ (১৮)। কালিয়াচক ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন তিনি। পরিবারের লোকজন জানিয়েছেন, ১৬ দিন আগে শ্রমিকের কাজ করতে প্রসেনজিৎ গ্রামেরই কয়েকজনের সঙ্গে গুজরাটের আমেদাবাদ যান। শুক্রবার সেখানে তাঁর নিজের গ্রামেরই এক যুবকের সঙ্গে বচসা হয়। বচসার জেরে প্রসেনজিৎকে সে মারধর করে বলে অভিযোগ। স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল তাঁকে। ওই দিন রাতে পরিবারের লোকদের ফোন করে সমস্ত ঘটনা জানিয়েছিলেন প্রসেনজিৎ। শনিবার সেই হাসপাতালেই মারা যান তিনি। আজ সকালে তাঁর দেহ বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হতেই শোকের ছায়া নামে এলাকায়। পাশাপাশি সৃষ্টি হয় ক্ষোভ। মৃতদেহ ঘিরে শুরু হয় বিক্ষোভ।  পরে পুলিশ গিয়ে অবস্থা নিয়ন্ত্রণে আনে।

মৃত যুবকের বাবা বিকাশ ঘোষ জানান, তাঁর দুই ছেলে এক মেয়ে। নুন আনতে পান্তা ফুরনো সংসারের হাল ধরতে বড় ছেলে প্রসেনজিৎ গুজরাটে কাজের খোঁজে গিয়েছিল। তিনি বলেন, “সেখানে কাজও করছিল। তাই সংসারে একটু সুদিন ফেরার আশা করেছিলাম। গ্রামেরই এক ছেলে ওকে মারধর করল। তারপর চিকিৎসাও পায়নি। মরে গেল। আমি চোখে দেখি না। এখন আমার গোটা পরিবারই তো অন্ধ হয়ে গেল। পুলিশ যেন বিচার করে।”

পুলিশ জানিয়েছে, পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

Comments are closed.